নাগরপুরে প্রতিমা বিসর্জ্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হল শারদীয় দুর্গোৎসব

0
50
মোঃ আমজাদ হোসেন রতন, নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের নাগরপুরে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হল বাঙালি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব। উপজেলার মণ্ডপে মণ্ডপে বেজে উঠেছে দেবী বিদায়ের সুর।
বিজয়া দশমীর আনুষ্ঠানিকতা শেষ। এখন দেবী দুর্গাকে বিদায় জানাচ্ছেন ভক্তরা। দেবী বিদায়ের আগে মণ্ডপ গুলোতে  সিঁদুর খেলায় অংশ নেন ভক্তরা। দেবী বিসর্জনের মধ্য দিয়ে মা দুর্গা ঘোড়ায় চড়ে তার সন্তান কার্তিক, গণেশ, লক্ষ্মী, সরস্বতীসহ কৈলাসে স্বামীর গৃহে ফিরে যাবেন।
হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাসে বোধনে অরুণ আলোর অঞ্জলি নিয়ে আনন্দময়ী মা উমাদেবীর আগমন ঘটে। টানা পাঁচদিন মৃন্ময়ীরুপে মণ্ডপ থেকে আজ ফিরে যাবেন কৈলাশে স্বামী শিবের সান্নিধ্যে দেবী বিসর্জনের পর সেখান থেকে শান্তিজল এনে তা রাখা হবে মঙ্গলঘটে, দুর্গা মায়ের সন্তানেরা তা ধারণ করবেন হৃদয়ে। সোমবার (৭ অক্টোবর) মহা নবমীর সন্ধ্যায় আরতি শেষে দেবী দুর্গার পায়ে শেষ অঞ্জলি প্রদান করা হয়।
হিন্দু শাস্ত্র মতে, নবমী তিথিতে রাবণ বধের পর শ্রী রামচন্দ্র এই পূজা করেছিলেন। নীলকণ্ঠ ফুল, যজ্ঞের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয় নবমী বিহিত পূজা। নবমী পূজার মাধ্যমে মানবকুলে সম্পদ লাভ হয়।
নাগরপুর উপজেলা 125টি পূজা মণ্ডপের মধ্য 30 মণ্ডপের প্রতিমা নিয়ে উপজেলার সরকারি কলেজ মাঠ সংলগ্ন নোয়াই নদীতে ও বিভিন্ন  নদীতে পুকুরঘাটে  নিয়ে প্রতিমা বিসর্জ্জন দিয়ে শেষ হল শারদীয় দুর্গোৎসব ।
এ ব্যাপারে নাগরপুর উপজেলা পূজা উৎযাপন পরিষদের আহবায়ক লক্ষীকান্ত সাহা বলেন নাগরপুর উপজেলায় প্রতিটি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব শান্তিপূর্ণ ভাবেই পালন করা হয়েছে। নাগরপুরে স্থানীয় সাংসদ জনাব আহসানুল ইসলাম টিটু নাগরপুরে অবস্থান করেন এবং পূজা মণ্ডপ গুলি থানা প্রশাসনসহ  মনিটরিং করেন। প্রতিমা বিসর্জনের সময় তিনি উপস্থিত থেকে দেখাশোনা করেন যাতে কোনো বিশৃঙ্খলা না হয় এ সময় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ  ফয়জুল ইসলাম উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ হুমায়ুন কবির ভাইস চেয়ারম্যান মহিলা ছামিনা বেগম শিপ্রা সহ চেয়ারম্যানদ্বয় ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here